দিনাজপুর পৌরসভায় ২২৩ শতাধিক কোটি  টাকার প্রস্তাবিত বাজেট পেশ 

 চলতি অর্থ বছরে (২০২৪-২০২৫) দিনাজপুর পৌরসভায় ২২৩ শতাধিক কোটির বাজেট পেশ করা হয়েছে। তবে বিদায়ী অর্থ বছরের একশত কোটি টাকার কম। উদ্বৃত্ত বাজেটে নিজস্বসহ আয় ধরা হয়েছে ২৩৩ কোটি, ৪৬ লাখ, ৮৬ হাজার ২৪৪ টাকা। ব্যয় ধরা হয়েছে ২২২ কোটি ৬০ লাখ ৩০ হাজার টাকা।  গেল অর্থ বছরে বাজেটে আয় ধরা হয়েছিল ৩২৩ কোটি ৩৯ লাখ ৫২ হাজার ২২৯ টাকা। অবশ্য প্রত্যাশিত অর্থ বরাদ্ধ জুটেনি বলে এবার একশত কোটি টাকা কম করে বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে।
আজ রবিবার দুপুরের দিকে গণমাধ্যমকর্মীদের সামনে বাজেট উপস্হাপন করেছেন ভারপ্রাপ্ত মেয়র আবু তৈয়ব আলী দুলাল।
এসময় উপস্থিত ছিলেন প্যানেল মেয়র একেএম মাসুদুল ইসলাম, কাউন্সিলর আশরাফুল আলম বাবু, শাহিন সুলতানা বিউটি, মাকসুদা পারভীন মিনা এবং পৌরসভার প্রধান নির্বাহী মাহবুবুর রহমানসহ অন্যান্যরা।
ভারপ্রাপ্ত মেয়র বলেন, সরকার এবং দাতা সংস্হার আর্থিক সহায়তায় জন গুরুত্বপূর্ণ  উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে।
এর মধ্যে এপিডির অর্থ্যায়নে ২০২৩-২০২৪ অর্থ বছরে প্রায় ১ শত ২২ কোটি টাকা ব্যয়ে উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। চলতি বাজেটে আরো ২ শত কোটি টাকা পাওয়া যাবে বলে আশা করছেন তারা।
আইইউআইডিপির সহায়তায় নগর অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে প্রায় ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে রাস্তা প্রেন কালভাট নির্মানসহ সংস্কারের কাজ শেষ পর্য্যায়ে রয়েছে। চলতি অর্থ বছরে আরো ১৩ কোটি টাকার প্রাক্কলন ব্যয়ের প্রকল্প প্রস্তাব (পিডি) অনুমোদিত হলে সিংহভাগ রাস্তা ড্রেন কালভাট সংস্কারের কাজ শুরু করতে পারবেন তারা।
এলজিসিআরআরপি লোকাল গভর্ণর কোভিট-১৯ প্রকল্পের মাধ্যমে ৫ টি প্যাকেজে ৬ কোটি টাকার মধ্যে সাড়ে ৪ কোটি কাজের টেন্ডার আহবান করা হয়েছে। আরো ১১ টি প্যাকেজের আওতায় সাড়ে ১৫ কোটি টাকার প্রকল্প দ্রুত অনুমোদিত হবে বলে আশায় আছেন তারা।
স্হানীয় অর্থনেতিক উন্নয়ন প্রকল্পে সরকার এবং সুইচ অর্থ্যায়নে কাঁচাবাজার আধুনিকায়ন,উইমরন কর্নার এন্ড বিজনেস সেন্টার ডেভেলপেমন্ট অনলাইন এন্ড ক্যাশলেস পৌরসেবা ডেভেলপমেন্ট সহ ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টারসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে পৌরসভার তহবিল থেকে ২ কোটি টাকা বরাদ্ধ ধরা হয়েছে। এছাড়াও চালকলসমুহ এবং উইমেন এন্ড চেম্বার অফ কর্মাস ইন্ডাস্ট্রিজের উন্নয়নে আরো দেড় কোটি টাকা বরাদ্ধ রেখেছেন তারা।
পাশাপাশি পৌরসভার ইন্পিগ্রেটেড সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজম্যান্ট প্রকল্পের মাধ্যমে প্রায় ২৫ কোটি টাকার কাজ দ্রুত আরাম্ভ করার কথা ভাবছেন তারা।
এদিকে আরইউটিডিপি প্রকল্পের মাধ্যমে সকল সড়ক ফুটপাত, ড্রেন, প্রাইমারি প্রেন ষ্ট্রিটলাইট, কবরস্হান মার্কেট,  ট্রাক, বাস টার্মিনাল সংস্কার ফল মার্কেট আধুনিকায়নসহ অত্যাধুনিক পৌরভবন নির্মানের পরিকল্পনা রয়েছে পৌর পরিষদের।
চলতি বাজেট বাস্তবায়নের মাধ্যমে নাগিরক দুর্ভোদ লাঘবের পাশাপাশি সেবা বাড়বে বলে আশা করছেন তারা।